‘খাবারের বিষাক্ততা ও এর পরিণাম পরিপ্রেক্ষিত বাংলাদেশ’ শিরোনামে অনলাইনে একটা ই-বুক প্রকাশ করেছে অর্গানিক ও নিরাপদ খাবার বিক্রয়কারী প্রতিষ্ঠান মাই অর্গানিক বিডিডটকম।

সম্প্রতি ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ধানমন্ডি ক্যাম্পাসে ‘ফান্ডিং ইয়োর স্টার্টআপ’ শিরোনামের এক সেমিনারে এই ই-বুকটি উন্মোচন করেন ই-ক্যাবের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট এবং সার্চ ইংলিশের প্রতিষ্ঠাতা রাজিব আহমেদ, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি চেয়ারম্যান সবুর খান, ড. ফাহরিন হান্নানসহ আরো অনেকে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মাই অর্গানিক বিডির প্রতিষ্ঠাতা সিইও শরীফুল আলম পাভেল।

শরীফুল আলম পাভেল বলেন, এখন অনেক খাবারেই মেশানো হচ্ছে ফরমালিন, কার্বাইড, হাইড্রোজ, ইথোপেনসহসহ নানা ধরণের ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ। এসব বিষাক্ত পদার্থ মানুষের শরীরে প্রবেশ করে কিডনি ফেইলর, হার্টঅ্যাটাক, ক্যান্সারসহ নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছে এবং অকালে মৃত্যুবরণ করছে। পাভেল আরো বলেন, মাই অর্গানিক বিডি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় বিষমুক্ত নিরাপদ খাবার পৌঁছে দেবার জন্যে। আমরা সবসময়ে খাবারের বিষাক্ততার কথা বলি, জনসাধারণকে সচেতন করার চেষ্টা করি এবং বিষমুক্ত খাবারের আন্দোলন করছি। তারই অংশ হিসেবে আমরা এই বইটি প্রকাশ করেছি। বর্তমানে বইটি বাংলা ভাষায় প্রকাশ করা হয়েছে। অক্টোবর এর ২ তারিখ থেকে এর ইংলিশ ভার্সন ও পাওয়া যাবে।

সবুর খান বলেন, এই ধরনের উদ্যোগগুলোকে উৎসাহিত করতেই হাজারো কর্ম ব্যস্ততার মাঝে উপস্থিত থাকার চেষ্টা করি। ভালো উদ্যোগকে ফান্ডিং করে পাশে থাকতে চাই।

রাজিব আহমেদ বলেন, আমাদের দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে এমন একটি বইয়ের খুবই প্রয়োজন ছিল। খাবারে ভেজাল ও বিষাক্ততা রোধ করতে হলে এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতাও গড়ে তুলতে হবে। আমি মনে করি মাই অর্গানিক বিডির প্রকাশিত এই বইটি সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে সক্ষম অবে। তাই আমি মাই অর্গানিক বিডির এই পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানাই।

ই-বুকটি সকলের জন্যে উন্মুক্ত। যে কেউ চাইলে বইটি ডাউনলোড করে পড়তে পারবে বিনা খরচে।