ঘোড়া নিমের পরিচিতি ও ভেষজ গুণাবলি

প্রচলিত নামঃ ঘোড়া নিম

ইউনানী নামঃ বাকায়েন

আয়ুর্বেদিক নামঃ মহানিম্ব

ইংরেজি নামঃ Bead tree, Persian Lilac

বৈজ্ঞানিক নামঃ Melia azadarach Linn.

পরিবারঃ Meliaceae

পরিচিতিঃ বহুল পরিচিত বৃক্ষ। এর পাতা ফুল ও ফল সাধারন নিমের অনুরুপ। তবে ফলের ভিতরে চার অংশে বিভক্ত এবং প্রত্যক অংশে একটি করে বীজ থাকে। বীজের উপরিভাগে কালচে বর্ণের আবরণ থাকে, কিন্তু ভিতরের শাঁস সাদা রঙের। পাতা সবুজ বর্ণ, ফুল হলুদ বর্ণ এবং স্বাদ তিক্ত।

প্রাপ্তিস্থানঃ সারাদেশে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। রাস্তার পাশে লাগানো হয়।

রোপনের সময় ও পদ্ধতিঃ বীজ থেকে চারা করে তা বর্ষার সময় লাগাতে হয়।

রাসায়নিক উপাদানঃ পাতা ফল ও ছালে প্রচুর তিক্ত উপাদান এবং অ্যালকালয়েদড, ল্যাকটিন, ট্যানিন, জৈব এসিড, লুপিয়ল, ক্যাটেচিন ও ভ্যানিলিক এসিড বিদ্যমান।

ব্যবহার্য অংশঃ পাতা, ছাল,ফল।

গুনাগুনঃ রক্ত পরিষ্কারক, ক্ষত নিবারক, জীবাণুনাশক, বিভিন্ন প্রকার চর্মরোগ, এলার্জি, বাতব্যাথা, অর্শ, পুরাতন জ্বর, মাথায় খুসকী ও উকুন দূর করতে অত্যন্ত কার্যকরী।

বিশেষ কার্যকারিতাঃ রক্ত পরিষ্কারক, ক্ষত নিবারক, জীবাণুনাশক।

রোগ অনুযায়ী ব্যবহার পদ্ধতিঃ

রোগেরনামঃ বিভিন্ন প্রকার চর্মরোগ ও এলার্জিতে
ব্যবহার্য অংশঃ ছাল বা পাতা চূর্ণ
মাত্রাঃ ৫-৬ গ্রাম
ব্যবহার পদ্ধতিঃ সমপরিমান গুড় বা চিনি মিশিয়ে প্রত্যহ ২ বার পানিসহ সেব্য।

রোগেরনামঃ জীবাণু সংক্রমন ও ক্ষত নিরসনে
ব্যবহার্য অংশঃ বীজ চূর্ণ
মাত্রাঃ ১-২ গ্রাম
ব্যবহার পদ্ধতিঃ প্রত্যহ ২-৩ বার পানিসহ সেব্য।

রোগেরনামঃ উকুন ও মাথার খুশকিতে
ব্যবহার্য অংশঃ পাতার নির্যাস
মাত্রাঃ প্রয়োজনমত
ব্যবহার পদ্ধতিঃ ১-২ লিটার পানিতে জ্বাল করে ছেঁকে নিয়ে মাথা ধৌত করতে হবে (১০-১৫) দিন ।

সতর্কতাঃ তিক্ত স্বাদের জন্য অতিমাত্রায় সেবনে পাকস্থলী ও যকৃতে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হতে পারে। তাই মৌরী সহযোগে সেবন করা উত্তম।

source:https://www.wikipedia.org/

Cart
  • No products in the cart.